প্রসেসিং এর খুটিঁনাটিঃ ডেটা টাইপ (পর্ব ৩)

0
208
প্রসেসিং এর খুটিঁনাটিঃ ডাটা টাইপ (পর্ব ৩)
প্রসেসিং এর খুটিঁনাটিঃ ডাটা টাইপ (পর্ব ৩)

প্রসেসিং এর আগের পর্বে আমরা ভ্যারিয়েবল ও বিভিন্ন শেপ সম্পর্কে জেনেছি। এই পর্বে শিখবো বিভিন্ন ডাটা টাইপ সম্পর্কে। এবং একই সাথে প্রসেসিং এ কালার সম্পর্কে জানবো।

আগের পর্বে আমরা int টাইপের ভ্যারিয়েবল নিয়ে কাজ করেছিলাম। আমি সম্ভবত এটিও বলেছিলাম যে int হচ্ছে একটি ডাটা টাইপ। ভ্যারিয়েবল এর নামের আগে ডাটা টাইপ টি ডিক্লেয়ার করলে কম্পিউটার বুঝতে পারে যে ভ্যারিয়েবল টি তে কিধরণের তথ্য রাখা হয়েছে। এক ডাটা টাইপের ভ্যারিয়েবল এ অন্য টাইপের ডাটা রাখা যায় না, এরর দেখায়।

জাভায় বেসিক ৮ ধরণের ডাটা টাইপ আছে। যথা,

  • byte,
  • short,
  • int,
  • long,
  • char,
  • float,
  • double,
  • boolean

এর মধ্যে সবচেয়ে ছোট ধারণ ক্ষমতার হচ্ছে বুলিয়ান। যা মাত্র ১ বিট ইউজ করে, এবং সবচেয়ে বড় ধারণ ক্ষমতা হচ্ছে ডাবল টাইপের। যা ৮ বাইট তথ্য ধারণ করতে পারে। ১ বাইট হচ্ছে ৮ বিটের সমান। বিট হচ্ছে কম্পিউটারের তথ্যের সবচেয়ে ছোট একক।

আমরা কি ধরণের এবং কতবড় ডেটা রাখব তার ওপর ভিত্তি করে ডাটা টাইপ নির্বাচন করতে হয়। যেমন, বাইট ডাটা টাইপ সর্বোচ্চ ১২৭ পর্যন্ত সংখ্যা ধারণ করতে পারে সাইনড অবস্থায়। আনসাইনড অবস্থায় ২৫৫ (সাইনড-আনসাইনড সম্পর্কে পরে জানতে পারবেন)। আবার লং ডাটা টাইপ সর্বোচ্চ 9223372036854775807 পর্যন্ত সংখ্যা ধারণ করতে পারে। (বাই দা ওয়ে, আপনি কি সংখ্যাটা পড়েছেন না প্রথম ৪টা সংখ্যা পড়েই স্কিপ করেছেন? 😀 ) ।

আপনি যখন অভিজ্ঞ প্রোগ্রামার হবেন, তখন যতটা সম্ভব কম মেমরি খরচ করে প্রোগ্রাম লেখার জন্য উপযুক্ত ডেটা টাইপ নির্বাচন করতে হবে। কিন্তু এখন যেহেতু আমরা ছোটখাট কাজ করছি, তাই সব ডেটা টাইপ সম্পর্কে না জেনে int, float, long, charboolean সম্পর্কে জানলেই চলবে।

ডাটা টাইপ এর চার্ট
বিভিন্ন ডাটা টাইপ এর চার্ট

উপরের চার্ট এ কোন ডাটা টাইপ কতটুকু জায়গা খরচ করে, ডিফল্ট ভ্যালু কত, আর কিধরণের তথ্য রাখা হয় সেটি দেয়া আছে। ডিফল্ট ভ্যালু বলতে, আপনি যদি int data; অথবা float data; এভাবে ব্ল্যাংক ভ্যারিয়েবল ডিক্লেয়ার করেন তাহলে তখন প্রাথমিকভাবে ভ্যারিয়েবলটির মান কত থাকবে সেটি দেয়া আছে। আর কি ধরণের তথ্য ধারণ করা হয় সেখানে Integral বলতে পূর্ণ সংখ্যা, Decimal বলতে দশমিক সংখ্যা, True or False বলতে বুলিয়ান ভ্যারিয়েবলটির ভ্যালু সত্যি না মিথ্যা (পরে আলোচ্য), এবং Character বলতে একটি অক্ষর বোঝানো হয়েছে।

Int কি তা আমরা এর আগের পর্বেই জেনেছি। float হচ্ছে int এর মতই। long হচ্ছে একটু বড় সংখ্যা রাখার জন্য, charboolean সম্পর্কে এখন জানবো।

char হচ্ছে Character এর শর্ট ফর্ম। এই ধরণের ভ্যারিয়েবল এ একটিমাত্র অক্ষর রাখা যায়। যেমন, s অক্ষরটি রাখার জন্য আপনাকে এভাবে ভ্যারিয়েবল ডিক্লেয়ার করতে হবে-

এখানে সিঙ্গেল ইনভার্টেড কমা দিতে হবে, ডাবল ইনভার্টেড কমা দিলে হবেনা।

boolean বা বুলিয়ান ভ্যারিয়েবল এর ২টি মান থাকে- সত্যি অথবা মিথ্যা। আপানি হয়ত ভাবতে পারেন ভ্যারিয়েবল সত্যি মিথ্যা হয় কিভাবে!! এখানে আসলে কম্পিউটার ০ অথবা ১ রাখে। আমরা যদি প্রগ্রামে ভ্যারিয়েবলটির মান true করি, তাহলে কম্পিউটার তার মেমরিতে ভ্যারিয়েবলটির মান করে দেয়, আবার false করলে কম্পিউটার ভ্যারিয়েবলটির মান করে দেয়।
বুলিয়ান ভ্যারিয়েবল এর সিনট্যাক্স হচ্ছে-


এটাকে true করার জন্যmyvariable= true  লিখতে হবে এবং প্রয়োজনে একই ভাবেfalse লিখতে হবে।

char ও boolean এই মুহূর্তে আমাদের কাজে আসবে না। তবে এর পরের পর্বে if else statement নিয়ে যখন কাজ করব, তখন এই ডাটা টাইপ দুটি ব্যাবহার করতে হবে।

আজকের মত এটুকুই। পরের পর্বে আমরা আমাদের if else statement শিখবো এবং আমাদের প্রোগ্রামের সাথে কিভাবে কি-বোর্ডমাউস ইন্টারফেস করতে হয় তা শিখবো।

ঘুরে আসুন আমাদের ইলেকট্রনিক্স শপ থেকেঃ
ঘুরে আসুন আমাদের ইলেকট্রনিক্স শপ থেকেঃ
ঘুরে আসুন আমাদের ইলেকট্রনিক্স শপ থেকেঃ
ঘুরে আসুন আমাদের ইলেকট্রনিক্স শপ থেকেঃ

কমেন্ট প্রদান

Please enter your comment!
Please enter your name here