আরডুইনো শিখি – পাঠ ২ঃ সফটওয়্যার পরিচিতি , প্রোগ্রাম করার নিয়মাবলী এবং প্রথম প্রোগ্রাম করা

2
968

আরডুইনো তে আমরা যে জিনিস টা দিয়ে প্রোগ্রাম করব সেটা কে একটু চিনে নেয়া যাক।

কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্যঃ

আরডুইনো তে আমরা যে ফাইল টি তৈরি করব তাকে sketch বলে।

Verify sketch ব্যাবহার করা হয়,লেখা প্রোগ্রাম টি কম্পাইল করার জন্য।

Compile and upload এর কাজ হল প্রোগ্রাম টি কম্পাইল করা এবং তৈরি হওয়া হেক্স ফাইল USB তে সংযুক্ত আরডুইনো তে লোড করা।

নতুন ফাইল নেয়ার জন্য ব্যাবহার করা হয় New sketch, ফাইল ওপেন করার জন্য open sketch এবং সেভ করার জন্য save sketch বাটন ।

আর নিচে কালো রঙের অংশ Error Console খুব গুরুত্বপূর্ণ একটা অংশ । প্রগ্রামে কোন ভুল বা সতর্কতা বা অন্য বার্তা এই console এর মাধ্যমে প্রদর্শিত হয় ।

এবার চলুন আর একটু কাজ করা যাক। Arduino ওপেন করে টুলবার থেকে FILE এ ক্লিক করি। এবার preference এ ক্লিক করি তারপর compilation এর চেকবক্স এ একটা টিক দিয়ে Ok তে ক্লিক করি ।

 

 

 

এবার প্রোগ্রাম করতে শুরু করা যাক।
প্রোগ্রাম করার সময় প্রথম যে কথা টা মনে রাখতে হবে তা হল আমরা যে IDE তে প্রোগ্রাম লিখব সেটা case sensitive সুতরাং বড় হাতের অক্ষরছোট হাতের অক্ষর এর দিকে একটু খেয়াল রাখতে হবে   wink

আমরা প্রোগ্রাম লিখব সাধারনত দুইটা ফাংশন ব্যাবহার করে
একটা  void setup( )   এবং অন্যটা void loop( )

void setup( )  ফাংশন এর ভিতর লিখতে হবে আমরা arduino এর কোন পিন কে কিভাবে ব্যাবহার করতে চায় ( ইনপুট বা অউটপুট ) এবং প্রয়োজন মত সেট আপ করার জন্য প্রয়োজনীয় নির্দেশনা।

ধরুন আমরা এখন ১৩ নং পিনে একটা LED সংযুক্ত করে জ্বালাতে চাই তো আমাদের পিন টাকে আউটপুট হিসাবে ব্যাবহার করতে হবে।তো এর জন্য ১৩ নম্বর পিনটাকে কনফিগার করতে হবে ঠিক এভাবে

লক্ষ্য করি pinMode ফাংশন টা হল পিনের অবস্থা বুঝানোর জন্য ব্যাবহার করা হয়। ব্রাকেট এর ভিতর “13” সংখ্যা টা হল পিনের নাম্বার আর কমা দিয়ে লিখতে হয় পিনটি কি ভাবে ব্যাবহার করা হবে “ইনপুট” বা “আউটপুট”

এখন pinMode দিকে খেয়াল করি, এর সব ছোট হাতের অক্ষর কিন্তু “M” বড় হাতের আবার “ইনপুট” বা “আউটপুট” লিখতে হবে বড় হাতের অক্ষরে ।

একটা গুরুত্বপূর্ণ কথা বলা হয় নি । সেটা হল স্বাভাবিক অবস্থায় ARDUINO এর operating voltage হল ৫ ভোল্ট এবং লজিক ভোল্টেজ হল “০ ভোল্ট” এবং “৫ ভোল্ট”

এখন আমরা যদি “০ ভোল্ট” কে সফটওয়্যার এর ভাষায় আরডুইনো কে বুঝাতে চাই তবে আমদের যে কম্যান্ড ব্যাবহার করতে হবে তা হল “0” অথবা “LOW”
আবার যদি “৫ ভোল্ট” কে সফটওয়্যার এর ভাষায় আরডুইনো কে বুঝাতে চাই তবে আমদের যে কম্যান্ড ব্যাবহার করতে হবে তা হল “1” অথবা “HIGH”।

আমরা মূল প্রোগ্রাম লিখব যে অংশে সেটা হল void loop() ফাংশন এর ভিতরে।

সাধারনত  void loop( )  ফাংশন টি হল এমন একটি ফাংশন যার ভিতর কোন নির্দেশনা দিলে তা বার বার চক্রাকারে এক্সিকিউট করবে, মানে যা “never ending loop” এর মত কাজ করবে ।

অনেক কথা বলা হল। চলুন এবার প্রথম প্রোগ্রাম টি করা যাক।

আমরা একটা LED জ্বালাবো 12 নং পিন ব্যাবহার করে।

তার জন্য আমরা Arduino Uno বোর্ড টাকে নিচের ছবির মত করে সংযুক্ত করি।

 

অথবা

 

 

এখন usb এর সাথে arduino সংযুক্ত করে আপলোড বাটন এ ক্লিক করি।

void loop এর ভিতর আমরা বলে দিয়েছি যে ১২ নং পিন হাই হবে সুতরাং LED এর একটা পিন যেহেতু GND এর সাথে সংযুক্ত আছে সেহেতু অন্য পিনটি তে ৫ ভোল্ট দিলে জ্বলে উঠবে। এখন যদি ১২ নং পিন “LOW” করে দি তবে কি হবে ?
তাহলে অবশ্যই LED টি জ্বলবে না ।

তো চলুন এখন আর একটা প্রোগ্রাম করা যাক যার উদ্দেশ্য থাকবে ১২ নং পিনে সংযুক্ত LED টাকে ১ সেকেন্ড অন্তর একবার জ্বালাবো একবার নিভাবো।

এখন আমারা নতুন একটা কথা বললাম “১ সেকেন্ড অন্তর”  মানে কোন কাজ করার জন্য সময় বেধে দেয়া।
এই কাজ টি করার জন্য একটা ফাংশন আছে delay( )

এই ব্রাকেট এর ভিতর যত সেকেন্ড দরকার তা মিলিসেকেন্ডে লিখে দিতে হবে ।

যেমনঃ delay(1000);  এক সেকেন্ডের জন্য

তাইলে প্রোগ্রাম টা দেখা যাক

 

এখন usb এর সাথে arduino সংযুক্ত করে আপলোড বাটন এ ক্লিক করি।

 

আর যারা proteus এ করতে চান তারা নিচের মত করে হেক্স ফাইল টি কপি করে

আরডুইনো এর উপর দুই বার ক্লিক করে Program file নামক বক্স এ পেস্ট করে ok তে ক্লিক করি। এখন রান বাটনে ক্লিক করি।

 

চিত্রঃ আরডুইনো IDE

চিত্রঃ Proteus

এই পাঠ টি পড়ার পর আমরা ৭ টি LED কে পর্যায়ক্রমে জালানোর চেষ্টা করি।

আগের পাঠে উল্লেখিত কাজ করা থাকলে সুবিধা হবে কারন আমি proteus এর ডিজাইন ফাইল দুটি করে দিচ্ছি।

সাথে থাকলো এই পাঠ এর কোড।

DOWNLOAD করুন
আপনাদের কাজ থাকবে 7 led.dsn এর জন্য কোড করা।

ধন্যবাদ সবাইকে    smiley

 

আরডুইনো শিখি – পাঠ ১ঃ প্রাথমিক আলোচনা

2 মন্তব্য

কমেন্ট করুন-