নতুনদের জন্য আইপিএস

43
10684
আইপিএস বোর্ড ঝালাইয়ের স্থান
ঝালাইয়ের স্থান

এখন বহুল জনপ্রিয়। লোডশেডিং থেকে পরিত্রাণের সহজ উপায় বাৎলে দিয়েছে এই আই পি এস নামক যন্ত্রটি। আজকাল লোডশেডিং আমাদের দৈনন্দিন জীবনের অনুষঙ্গই বলা চলে। লোডশেডিং এর ফলে জীবনযাপন, ব্যবসা-বাণিজ্য সহ প্রায় সবকিছুই স্থবির হয়ে পড়ে। বিশেষত বাসা-বাড়িতে শিশু, বয়স্ক লোক ও অসুস্থদের সমস্যা বেশি হয়।

এ সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে আজকাল অনেকেই “” কিনছেন বা কেনার কথা ভাবছেন। বিদ্যুৎ চলে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে স্বয়ংক্রিয়ভাবে বিদ্যুৎ সরবরাহ হওয়ায় এতে কোনো ঝামেলা নেই। এর মাধ্যমে বাতি, ফ্যান, ফ্রিজ, কম্পিউটার, টিভি, ভিডিও প্লেয়ার প্রভৃতি প্রায় সব ধরনের ইলেকট্রিক বা ইলেকট্রনিক যন্ত্রই চালানো যাচ্ছে।

চার্জ দেওয়ার ব্যবস্থা থাকায় আই পি এস ব্যবহারে কোনো ফুয়েল বা লুব্রিকেন্টেরও প্রয়োজন হয় না। ব্যাকআপ পাওয়া যায় দুই থেকে আড়াই ঘণ্টা। তবে সম্পর্কে সঠিক তথ্য না জানার ফলে অনেকেই বিভিন্ন ধরনের বিড়ম্বনার সম্মুখীন হচ্ছেন। আসুন সম্পর্কে কিছু তথ্য জেনে নিই। একই সাথে বাজারে বহুল প্রচলিত একটি বোর্ড দিয়ে তৈরি করাও শিখবো।

কী

IPS এর অর্থ Instant Power Supply. অর্থাৎ আই পি এস এমন একটি ইলেকট্রনিক ও যান্ত্রিক ব্যবস্থা যার মাধ্যমে ব্যাটারীতে সঞ্চিত ডিসি শক্তিকে প্রবাহে রূপান্তর করে বৈদ্যূতিক লোড যেমন বাতি, পাখা ইত্যাদি চালানো যায়।

যখন বিদ্যূৎ সরবরাহ থাকে তখন চার্জারের মাধ্যমে ব্যাটারীকে চার্জ করে বিদ্যুৎ শক্তি সঞ্চয় করা হয়। আর যখন বিদ্যূৎ সরবরাহ বন্ধ হয়ে যায় তখন উপযুক্ত যন্ত্রাংশের মাধ্যমে ব্যাটারী হতে সঞ্চিত শক্তিকে প্রয়োজনীয় রূপে পরিবর্তন করে বৈদ্যুতিক লোড চালনা করাহয়। এই যন্ত্রের নাম । এবার আসি আসল কথায়, নিজে নিজে আই পি এস কিভাবে বানাবো-

আই পি এস বানাতে আমাদের যা যা লাগবে

  1. সোল্ডারিং আয়রন ও রাং, রজন।
  2. প্লায়ার্স
  3. স্ক্রু ড্রাইভার
  4. ড্রিল মেশিন
  5. সুন্দর একটি IPS বক্স
  6. On Off সুইচ
  7. 3 pin সকেট
  8. প্রয়োজনীয় স্ক্রু ও প্রয়োজনীয় সংযোগ তার।
  9. একটি ৬৫০ ভিএ (VA) (12-0-12V to 240V)
  10. অনেক গুলো খুটি ( বোর্ড বসানোর জন্য)
  11. একটি নাতাসা বা বিমটেক্স বোর্ড ( এটা স্টেডিয়াম মার্কেটে পাবেন)
  12. ডিসি মোটা ক্যাবল – লাল ২.৫ ফিট ও কালো ২.৫ ফিট
  13. কুলিং ফ্যান
  14. একটা হার্জ মিটার (৭০০ টাকা নেবে)
  15. একটা

এবার কাজ শুরু করা যাক

প্রথমে ক্যবিনেটের ভিতরে ট্রান্সফরমার বসানোর যায়গা ও বসানোর যায়গা ড্রিল দিয়ে ছিদ্র করে নিন। তার পরে ট্রান্সফরমার স্ক্রু দিয়ে ক্যবিনেটের সাথে ভালো ভাবে আটকে দিন।

টেকনিশিয়ান দের দিয়ে এইভাবে ট্যাপ (Tap) বের করে নিবেন-

এর ট্যাপ ডিজাইন

আইপিএস ট্রান্সফরমারের ট্যাপ ডিজাইন
ের ট্যাপ ডিজাইন

যেভাবে ঝালাই করবেন

ক্যাবিনেটের যে পাশে থ্রি-পিন প্লাগ আর কুলিং ফ্যান থাকে এবার কালো তার সেই পাশে নিচের দিকে সমান্তরালে তিনটা ছিদ্র থাকে তার একটা দিয়ে ঢুকিয়ে নাতাসা বা বিমটেক্স বোর্ডের ছবিতে দেওয়া স্থানে ভালো করে ঝালাই করে দিন।

ঝালাইয়ের স্থান
ঝালাইয়ের স্থান

এরপরে লাল তারটি ট্রান্সফরমারের লো ভোল্ট সাইডের যে তিনটা তার থাকে তার মাঝ খানেরটাতে ভালো করে ঝালাই করে দিন নিচের ছবির মতো।

ট্রান্সফর্মারে মাঝের তারটিতে ঝালাই করুন
ট্রান্সফরমারের ঝালাইয়ের স্থান

এরপরে লো ভোল্ট সাইডে বাকি যে দুইটা মোটা তার থাকে তার একটা বোর্ডের একটা হিটসিংকে আর অপরটা অন্য হিটসিংকে স্ক্রু দিয়ে ভালো করে লাগান। (উপরের ছবি দ্রষ্টব্য)

যেভাবে বোর্ডকে ওয়্যারিং করতে হবে

এইবার ওয়্যারিং এর পালা। ওয়্যারিং করার জন্য কম্পিউটারের নষ্ট পাওয়ার সাপ্লাই এর তার হলে খুব ভালো হয়। আমি ওয়্যারিং ডায়গ্রাম নিচে দিলাম।

আইপিএস - ওয়্যারিং ডায়াগ্রাম
আইপিএস – ওয়্যারিং ডায়াগ্রাম

বোর্ডের পিন কানেকশন

উপরের চিত্রে বাঁ থেকে ৬টা পিন পয়েন্ট দেখতে পাচ্ছেন।

  • ১ নং পিনে খেয়াল করুন, একটা ক্যপাসিটর কে বাড়ির লাইনের নিউট্রালের সাথে সিরিজে লাগিয়ে দিন।
  • ২নং পিনে আপনার আইপিএস এর ইনপুট কর্ড এর ফেস (Phase) তারের সংযোগ দিন।
  • ৩নং পিনে আপনার ইনভারটার ট্রান্সফরমার এর আউটপুটের তার (যেটা দিয়ে ২৮০/৩০০ ভোল্ট বেরুবে ) সংযোগ দিন।
  • ৪নং পিন থেকে তার নিয়ে ইনভারটার এর যে আউটপুট সকেট আছে তার ডান পাশের পিনে ভালো করে ঝালাই করে দিন।
  • ৫নং পিন আমরা ব্যবহার করবো কারেন্ট আসলে ইনভার্টার এর মাধ্যমে ব্যটারি চার্জ করার জন্য। এটার সংযোগ হবে পিন থেকে তার নিয়ে ট্রান্সফরমার এর যে ট্যাপ ১৪০ ভোল্ট সেটার সাথে।
  • ৬নং পিন বাড়ির নিউট্রাল (ইনপুট কর্ডের নিউট্রাল) + ইনভারটার ট্রান্সফরমার এর নিউট্রাল এর সাথে এক করে ভালো করে ঝালাই করে দিন। ব্যাস আমাদের ওয়্যারিং শেষ। এখন সংযোগ দেবার পূর্বে কিছু গুরুত্বপূর্ণ কাজ করতে হবে।

সংযোগ দেবার পূর্বে কিছু গুরুত্বপূর্ণ কাজ

  • আউটপুটে ৫০ হার্জ করতে হবে হার্জ মিটার দিয়ে মেপে
  • আউটপুট ২৪০ ভোল্ট করতে হবে দিয়ে মেপে
  • আউটপুট লাইটের উজ্জ্বলতা ঠিক করতে হবে যত ওয়াটের আইপিএস ততো ওয়াটের লাইট জ্বালিয়ে সার্কিটে থাকা ভেরিয়েবেল ঘুরিয়ে
  • ব্যটারি চার্জ এম্পিয়ার ঠিক করতে হবে (এম্পিয়ার দিতে হবে ব্যটারির এম্পিয়ারকে ৮ দিয়ে ভাগ দিলে যা আসে ততোটুকু) ব্যাটারি পোস্টের যে কোনো একটা তার খুলে সিরিজে একটা এম্পিয়ার মিটার দিয়ে মাপলে বোঝা যাবে এম্পিয়ার কত যাচ্ছে
  • ব্যাটারি চার্জ ভোল্ট ঠিক করতে হবে মানে কত ভল্টে গেলে অটো কাট হবে

পরিশিষ্ঠঃ

আশাকরি যাদের হাল্কা টেকনিক্যাল/ইলেকট্রনিক্স জ্ঞান আছে তারা তৈরি করতে পারবেন। আর তা করতে পারলেই আমার এই কষ্ট করে লেখার স্বার্থকতা। ভুল হতে পারে, ভুল হলে ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন। সকল কে ধন্যবাদ।

বিঃদ্রঃ কিছু না বুঝলে নিচে কমেন্টে জানাবেন। এই আই পি এস ছাড়াও মিনি আইপিএস নিয়ে জাহিদুল হাসান ভাইয়ের লেখা আমাদের সাইটে পড়তে পারেন এই লিংক থেকে – মিনি আইপিএস তৈরি

ঘুরে আসুন আমাদের ইলেকট্রনিক্স শপ থেকেঃ
ঘুরে আসুন আমাদের ইলেকট্রনিক্স শপ থেকেঃ
ঘুরে আসুন আমাদের ইলেকট্রনিক্স শপ থেকেঃ
ঘুরে আসুন আমাদের ইলেকট্রনিক্স শপ থেকেঃ

43 টি কমেন্ট

  1. Dear sir Ami Bangla type korte parina tar jonno khoma cheye nichi. Ips er circuit and transformer er windidig sombonde kichu idea dile valo hoto. Asha Kori next poste aro valo details likhben.eituku idea Dewar jonno lots of thanks.

  2. মোহাম্মদ ইস্মাইল ভাই কমেন্টস করার জন্য অনেক ধন্যবাদ ভাই :)। আপনি যদি ঢাকা থাকেন তাহলে স্টেডিয়াম মার্কেটে ভালো বড় দোকানে খোজ নিলে এই নাতাসা বা বিমটেক্স ছার্কিট পেয়ে যাবেন। আর ট্রান্সফরমার টা আপনি সেখান থেকেই জেকনো টেক্নি শিয়ান দের দিয়ে ছবির মত ট্যপ বের করে বানিয়ে নিন।সেটা ভালো হবে ভাই।আপনাকে আবারো অনেক ধন্যবাদ :)।

  3. লাইম খান ভাই ইনর্ভারটার আর আইপিএস এক জিনিষ। ( যদিওবা ” আইপিএস” বলে কিছু নাই। আমাদের দেশে এই নামটা শুধু ব্যবহার হয়। কনোক সাহেব এই সিস্টেমে চার্জ ফুল হলে মানে কাট পয়েন্টে গেলে চার্জ বন্ধ হয়ে যাবে।যখন চার্জ হবে তখন একটা এলিডি জলবে আর ফুল হলে বা কাট পয়েন্টে গেলে লাইট নিভে যাবে। হ্য ভাই ইচ্ছা আছে ট্রান্সফরমার নিয়ে লেখার। দেখি লিখবী ইন্সাল্লাহ।

  4. রাসেল ভাই আপনার বাড়ি কোন এলাকায় সেটা উল্লেখ করেন নি। যায় হোক এইটা আপনার এলাকায় খোজ নিলেই পাবেন। আর আমার এলাকার ভেতরে হলে চেস্টা করতাম উত্তম একটা আইপিএস আপনাকে যতটুকু কমে পারি দেওয়ার। যাইহোক এলাকায় পেলে কিনে নিয়েন আর কিছু টেক্নিকাল জ্ঞ্যন থাকলে আমার দেওয়া সিস্টেমে বানানোর চেস্টা করতে পারেন। ধন্যবাদ 🙂

  5. Rigan Mozumder ভাই লোকাট সিস্টেম সেট করা আছে ৯ ভোল্টে তাই এই ভেরিয়েবেল না ঘোরানোটা বুদ্ধিমানের কাজ হবে।

  6. একটি DC ফ্যান , একটি DC লাইট জ্বালানোর জন্য আই পি এস বানাতে কত খরছ পড়তে পারে ?
    আমি ইন্টারনেটে আই পি এস সংক্রান্ত পোস্ট দেখে , ব্যাবসায়িক ভাবে করার চিন্তা করেছি । কিন্তু দুঃখের বিষয় , আমি এর আগা গোঁড়া কিছুই বুঝতেছিনা । অনেকের পোস্ট দেখলাম ২০০০ টাকায় বানিয়ে নিন আই পি এস ।
    তাই যদি দয়া করে বলতেন ।
    ধন্যবাদ

    • আইপিএস বলতে আপনি ঠিক কি বুঝেছেন? IPS = Instant Power Supply, আপনি যদি এটাই বুঝে থাকেন, তাহলে তো এতো ঝামেলার কিছু নেই, সরাসরি ব্যাটারী থেকে আপনার ফ্যান লাইটে একটা রিলে দিয়ে লাগিয়ে দেবেন। মেইন পাওয়ার চলে গেলেই ফ্যান লাইট জ্বলে উঠবে। দুই মিনিটের মামলা।

  7. ভাই,বাসায় কারেন এর লাইলেন সাথে কি ভাবে সংযোগ দেব একটু দেখাবেন।ডায়াগ্রামের মাধ্যমে।আই পি এস এর ইন পুট এবং আউট পুট কোনটা কোথায় লাগবে দেখাবেন।আর কোন আলাদা কোন সুইচ লাগানো লাগবে কিনা যানাবেন।

  8. ভাই আমি ৫.৫৮,৭ এই দুটি সুত্র দিএ প্রায় ৪০০ পিস আই পি এস এর কয়েল বানাইছি,কিন্তু আমি আপনাদের সুত্র বুজতে অনেক সমসসা হচ্চে জদি একটু আপনাদের হিসাবটা সহজে বুজাইতেন আমি অনেক খুসি হতাম

  9. ১২ ভোল্ট ৯ আম্পায়ার এর ব্যাটারিতে একটি
    ইনভার্টার লাগাব,,,,, মোবাইল চার্জ দেয়ার হন্য
    কোনটা লাগাতে হবে আর দাম কত?

  10. হাতে কলমে তৈরি করা শেখান কিনা? শেখালে কোথায়? আপনারা না শেখালে অন্য কোন প্রতিষ্ঠান শেখায়? বিভিন্ন সাইজের শুধু আইপিএস তৈরি করা।
    আমার বাড়ি ঢাকায়।

কমেন্ট প্রদান

Please enter your comment!
Please enter your name here